তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি অধিদপ্তর গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার
মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ১৪ মার্চ ২০১৭

প্রশিক্ষণ কর্মশালায় বক্তারা বলেন ,"তথ্যপ্রযুক্তি গ্রামের মানুষের জীবনধারা বদলে দিয়েছে "


প্রকাশন তারিখ : 2017-03-14
 

শহীদুল ইসলাম, প্রথম আলো, পঞ্চগড়

১৪ মার্চ ২০১৭, ০১:২৯

গ্রামপর্যায়ে তথ্যপ্রযুক্তির প্রসার তৃণমূল মানুষের জন্য বিরাট সম্ভাবনা সৃষ্টি করেছে। গ্রামের মানুষ এখন ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টার (ইউডিসি), মুঠোফোন ও ল্যাপটপ কম্পিউটারে ইন্টারনেট ব্যবহারের সুযোগ পাচ্ছেন, অনলাইনে নানা ধরনের তথ্য ও সেবা পাচ্ছেন। এই সুযোগ গ্রামের মানুষের জীবনধারা যেমন বদলে দিচ্ছে, তেমনি তা তাদের জীবিকার উন্নয়নেও ভূমিকা রাখছে।
পঞ্চগড় জেলা প্রশাসকের সম্মেলনকক্ষে গতকাল সোমবার সরকারের তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি (আইসিটি) বিভাগের তৃণমূলের তথ্যজানালা কর্মসূচি ও তথ্যসেবা বার্তা সংস্থা (টিএসবি) আয়োজিত ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টারের (ইউডিসি) উদ্যোক্তাদের প্রতিবেদন ও ফিচার লেখন এবং আউটসোর্সিং ও ই-কমার্স বিষয়ক এক প্রশিক্ষণ কর্মশালায় বক্তারা এসব কথা বলেন।
পঞ্চগড়ের জেলা প্রশাসক অমল কৃষ্ণ মন্ডলের সভাপতিত্বে তিন দিনের কর্মশালার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বক্তৃতা করেন আইসিটি অধিদপ্তরের মহাপরিচালক (অতিরিক্ত সচিব) বনমালী ভৌমিক, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের একসেস টু ইনফরমেশন (এটুআই) কর্মসূচির জনপ্রেক্ষিত বিশেষজ্ঞ নাইমুজ্জামান এবং যোগাযোগ বিশেষজ্ঞ অজিত কুমার সরকার। তৃণমূলের তথ্যজানালা কর্মসূচির ওপর সামগ্রিক কার্যক্রমের ওপর বক্তৃতা করেন টিএসবির নির্বাহী সম্পাদক অলিউর রহমান। কর্মশালায় জেলার ৮৬ জন উদ্যোক্তা অংশ নিচ্ছেন।
বনমালী ভৌমিক বলেন, সরকার সব ইউনিয়নে উচ্চগতির ইন্টারনেট সংযোগ পৌঁছে দেওয়ার লক্ষ্যে কাজ করছে। এ জন্য ইনফো-সরকার ৩ ও এস্টাবলিশিং ডিজিটাল কানেকটিভিটি নামে দুটি প্রকল্প গ্রহণ করা হয়েছে। এ দুটি প্রকল্প বাস্তবায়িত হলে দেশের সব ইউনিয়ন উচ্চগতির ইন্টারনেট সংযোগের আওতায় চলে আসবে। তখন বাংলাদেশের গ্রামেও গড়ে উঠবে ইনফরমেশন সেন্টার।
নাইমুজ্জামান বলেন, ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টার (ইউডিসি) স্থাপনের মাধ্যমে সরকার মানুষের দোরগোড়ায় তথ্য ও সেবা পৌঁছে দিয়েছে। বর্তমানে কৃষি, শিক্ষা ও স্বাস্থ্য-সম্পর্কিত ডিজিটাল বিষয়বস্তু (কনটেন্ট) তৈরি করে তা তৃণমূল মানুষের কাছে পৌঁছে দেওয়া হচ্ছে। 

Share with :

Facebook Facebook