তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি অধিদপ্তর গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার
মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ৫ নভেম্বর ২০২০

সিনিয়র সচিব জনাব এন এম জিয়াউল আলম পিএএ

জনাব এন এম জিয়াউল আলম পিএএ        

সিনিয়র সচিব

 

জনাব এন এম জিয়াউল আলম, বর্তমানে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের সিনিয়র সচিব। তিনি মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সচিব হিসেবে সমন্বয় ও সংস্কারের (ডিসেম্বর 2015 থেকে জানুয়ারী 2019 পর্যন্ত) দায়িত্বে ছিলেন। এর আগে তিনি ইমিগ্রেশন এবং পাসপোর্ট অধিদফতরের মহাপরিচালক ছিলেন। তিনি বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিসের (বিসিএস প্রশাসন) ৮৪ ব্যাচের অন্তর্ভুক্ত।

 

তিনি চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় থেকে উদ্ভিদবিদ্যায় এম.এস.সি. এবং পরে গভর্নেন্স অ্যান্ড ডেভলপমেন্ট বিষয়ে ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয় থেকে আরও স্নাতকোত্তর লাভ করেন। তিনি জেলা প্রশাসক (খুলনা) এবং বিভাগীয় কমিশনার (সিলেট) সহ মাঠ প্রশাসনের সকল মূল পদে দায়িত্ব পালন করেছেন। তিনি সচিবালয়ে বিভিন্ন মন্ত্রণালয় / বিভাগে বিভিন্ন পদে দায়িত্ব পালন করেছেন।

 

তার দীর্ঘ কর্মজীবনে জনাব আলম সক্রিয়ভাবে বিভিন্ন সভায় অংশ নিয়েছিলেন; কর্মশালা; সেমিনার; দেশ ও বিদেশে বাণিজ্য আলোচনার বিষয়ে আঞ্চলিক, দ্বিপাক্ষিক এবং বহুপাক্ষিক বৈঠক। তিনি সাফটা, বিমসটেক এবং এপিটিএ আলোচনার বৈঠকে বাংলাদেশ প্রতিনিধিদের নেতৃত্ব দিয়েছিলেন এবং সেসব আঞ্চলিক বাণিজ্য চুক্তির মন্ত্রিসভায় অংশ নিয়েছিলেন। তিনি জি টু পি, ওপেন গভর্নমেন্ট ডেটা (ওজিডি), টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্য (এসডিজি) এবং বিদেশে সিভিল রেজিস্ট্রেশন এবং গুরুত্বপূর্ণ পরিসংখ্যান (সিআরভিএস) সম্পর্কিত আন্তর্জাতিক সম্মেলনেও যোগ দিয়েছিলেন। তিনি ২০০৭ সালে বাংলাদেশ থেকে পোশাক রফতানিতে বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে বাণিজ্য চুক্তি স্বাক্ষরকরণে সক্রিয়ভাবে কাজ করেছিলেন। জাতীয় পর্যায়ে তিনি মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে জিওবি-ডিপি এলসিজির সহ-সভাপতির দায়িত্ব পালন করছেন। তিনি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ে ‘সহযোগিতা সমাধান তৈরি: প্রশাসনে ইনোভেশন’ শীর্ষক একটি কোর্সে অংশ নিয়েছিলেন। তিনি দেশে বিদেশে বেশ কয়েকটি পেশাদার প্রশিক্ষণও নিয়েছিলেন। তিনি থাইল্যান্ড, সংযুক্ত আরব আমিরাত, পাকিস্তান, যুক্তরাজ্য, সুইডেন, ফিনল্যান্ড, নেপাল, ভারত, ভুটান, শ্রীলঙ্কা, সিঙ্গাপুর, মালয়েশিয়া, স্পেন, তুরস্ক, পর্তুগাল, ইতালি, সুইজারল্যান্ড, সৌদি আরব, বাহরাইন, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, ইন্দোনেশিয়া, ফিলিপাইন, ভিয়েতনাম, জাপান, নিউজিল্যান্ড এবং অস্ট্রেলিয়া সহ বেশ কয়েকটি দেশ পরিদর্শন করেছেন ।

 

সিলেটের বিভাগীয় কমিশনার হিসাবে ২০১২ সালে সিলেট বিভাগের ডিজিটাইজেশন কার্যক্রমে অসামান্য অবদানের জন্য তাঁকে ‘ইনোভেশন অ্যাওয়ার্ড’ নামে জাতীয় পুরষ্কার প্রদান করা হয়েছে।

 

মিঃ আলম বিবাহিত এবং তিন কন্যার সাথে আশীর্বাদপ্রাপ্ত। তাঁর দৃষ্টি মানুষের সেবা করার।


Share with :

Facebook Facebook